২১ জুন দেখা যাবে ‘রিং অব ফায়ার’

প্রকাশিত: জুন ১৩, ২০২০ / ০৭:৩৬অপরাহ্ণ
২১ জুন দেখা যাবে ‘রিং অব ফায়ার’

এই মাসের ২১ জুন বলয়গ্রাস সূর্যগ্রহণ হবে। এই সূর্যগ্রহণকে বলা হয় ‘রিং অব ফায়ার’। বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে আংশিক গ্রহণ দেখা যাবে। মহাকাশ ও জ্যোতির্বিদ্যাবিষয়ক ওয়েবসাইট স্পেস ডটকম এই তথ্য জানিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি জানায়, ২১ জুন আফ্রিকা ও এশিয়ায় দেখা যাবে। বাংলাদেশের আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, রিং অব ফায়ার আংশিকভাবে দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে দেখা যাবে।

ভিডিওটি দেখুন এখানে

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, ২১ সকাল ৯টা ৪৬ মিনিট ৬ সেকেন্ডে কঙ্গো প্রজাতন্ত্রের ইম্পফোন্ডো শহরের আকাশে সূর্যগ্রহণ শুরু হবে। কেন্দ্রীয় গ্রহণ শুরু হবে ১০ টা ৪৮ মিনিট ৩০ সেকেন্ডে কঙ্গোর বোমা শহরের আকাশে। সর্বোচ্চ গ্রহণ ঘটবে ভারতের যোশীমঠ শহরে ১২টা ৪০ মিনিট ৬ সেকেন্ডে। সর্বোচ্চ গ্রহণের সময় এর সর্বোচ্চ মাত্রা .৯৯৩৬ থাকবে। কেন্দ্রীয় গ্রহণ শেষ হবে দুপুর ২টা ৩১ মিনিট ৪২ সেকেন্ডে ফিলিপাইনের সামার শহরে। সূর্যগ্রহণ শেষ হবে বিকেল ৩টা ৩৪ মিনিটে ফিলিপাইনের মিন্দানাও শহরের আকাশে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের কর্মকর্তা ড. আব্দুল মান্নান জানান, আকাশ পরিষ্কার থাকলে ২১ জুন বাংলাদেশ থেকেও আংশিক সূর্যগ্রহণ দেখা যাবে। ঢাকার আকাশে ১১টা ২৩ মিনিট ৩ সেকেন্ডে সূর্যগ্রহণ শুরু হবে। কেন্দ্রীয় গ্রহণ ঘটবে দুপুর ১টা ১২ মিনিট ২৯ সেকেন্ডে এবং গ্রহণ শেষ হবে দুপুর ২টা ৫২ মিনিট ৩ সেকেন্ডে। মংমনসিংহের আকাশে ১১টা ২৩ মিনিট ২ সেকেন্ডে সূর্যগ্রহণ শুরু হবে, কেন্দ্রীয় গ্রহণ ঘটবে দুপুর ১টা ১২ মিনিট ১৩ সেকেন্ডে এবং গ্রহণ শেষ হবে দুপুর ২টা ৫১ মিনিট ২ সেকেন্ডে। চট্টগ্রামে ১১টা ২৮ মিনিট ১২ সেকেন্ডে সূর্যগ্রহণ শুরু হবে, কেন্দ্রীয় গ্রহণ ঘটবে দুপুর ১টা ১৭ মিনিট ৩০ সেকেন্ডে এবং গ্রহণ শেষ হবে দুপুর ২টা ৫৫ মিনিট ১৩ সেকেন্ডে।

সিলেটে ১১টা ২৭ মিনিট ৪৭ সেকেন্ডে সূর্যগ্রহণ শুরু হবে, কেন্দ্রীয় গ্রহণ ঘটবে দুপুর ১টা ১৬ মিনিট ৫০ সেকেন্ডে এবং গ্রহণ শেষ হবে দুপুর ২টা ৫৪ মিনিট ৫২ সেকেন্ডে। খুলনায় ১১টা ২০ মিনিট ১৯ সেকেন্ডে সূর্যগ্রহণ শুরু হবে, কেন্দ্রীয় গ্রহণ ঘটবে দুপুর ১টা ৯ মিনিট ৪৫ সেকেন্ডে এবং গ্রহণ শেষ হবে দুপুর ২টা ৫০ মিনিট ৯ সেকেন্ডে।

বরিশালে ১১টা ২৩ মিনিট ৫ সেকেন্ডে সূর্যগ্রহণ শুরু হবে, কেন্দ্রীয় গ্রহণ ঘটবে দুপুর ১টা ১২ মিনিট ৩২ সেকেন্ডে এবং গ্রহণ শেষ হবে দুপুর ২টা ৫২ মিনিট ১ সেকেন্ডে। রাজশাহীতে ১১টা ১৭ মিনিট ১৪ সেকেন্ডে সূর্যগ্রহণ শুরু হবে, কেন্দ্রীয় গ্রহণ ঘটবে দুপুর ১টা ৬ মিনিট ২৬ সেকেন্ডে এবং গ্রহণ শেষ হবে দুপুর ২টা ৪৭ মিনিট ৫৫ সেকেন্ডে। রংপুরে ১১টা ১৭ মিনিট ৫৯ সেকেন্ডে সূর্যগ্রহণ শুরু হবে, কেন্দ্রীয় গ্রহণ ঘটবে দুপুর ১টা ৭ মিনিট ২০ সেকেন্ডে এবং গ্রহণ শেষ হবে দুপুর ২টা ৪৮ মিনিট ৩৩ সেকেন্ডে।

এই সূর্যগ্রহণ মানুষকে খালি চোখে দেখতে নিষেধ করেছেন নাসার বিজ্ঞানীরা। এমনকী সানগ্লাস বা এক্স-রে প্লেটও ব্যবহার না করা ভাল। টেলিস্কোপের সাহায্যে দেখার ক্ষেত্রেও সাবধনতা অবলম্বন করতে বলেছে নাসা। পরিবর্তে পিনহোল প্রজেক্টর দিয়ে সাদা কাপড়ে ছায়া ফেলে গ্রহণ দেখা করা বলেছেন বিজ্ঞানীরা। এছাড়া গ্রহণ দেখার জন্য আই প্রোটেকশন গিয়ারও ব্যবহার করা যেতে পারে। এবারের সূর্যগ্রহণের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত সতর্কতা নিতে বলার পিছনে কারণও রয়েছে। কারণ এই সূর্যগ্রহণ আংশিক নয়। এমনকী পূর্ণগ্রাসও নয়। ২১ জুন যে সূর্যগ্রহণ হবে, তা বলয়গ্রাস সূর্যগ্রহণ। এক্ষেত্রে চাঁদ সূর্যকে ঢেকে ফেলে। কিন্তু চাঁদের আয়তন ছোট হওয়ার সূর্য চাঁদের পাশ দিয়ে আলো বিকিরণ করে। ফলে আকাশে আংটির মতো আকৃতি তৈরি হয়। ইংরেজিতে যাকে বলে ‘ring of fire’।

এটি খালি চোখে দেখলে চোখ খারাপ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা তো থাকেই, এমনকী অন্ধত্ব আসার বিচিত্র নয়।