কুমারি মেয়েটি ‘মা’ হয়েছে, বাবা হয়নি কেউ!

প্রকাশিত: এপ্রি ২৩, ২০২০ / ১০:৪৭অপরাহ্ণ
কুমারি মেয়েটি ‘মা’ হয়েছে, বাবা হয়নি কেউ!

পেটের পীড়া নিয়ে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের সার্জারী বিভাগে ভর্তি হওয়া কুমারি মা ৫ মাসের সন্তান জন্ম দিয়েছেন। এ খবর ছড়িয়ে পড়ায় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৩ এপ্রিল) ভোরে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ওই শিশুর জন্ম হয়।

ভিডিওটি দেখুন এখানে

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, বুধবার রাতে পেটের পীড়া নিয়ে শহরের ১৪ বছরের ওই কিশোরী হাসাপাতালে ভর্তি হয়। বৃহস্পতিবার রাতে ৫ মাসের মৃত সন্তান ভূমিষ্ট হয়। পরে সেই সন্তান ফেলে পালিয়ে যাওয়ার সময় হাসপাতালের পরিচ্ছন্ন কর্মীরা তাকে হাতেনাতে ধরে ফেলে।

হাসপাতালের পরিচ্ছন্ন কর্মী সুজন দাস জানানা, সকালে হাসপাতালের টয়লেটে ওই সন্তান ফেলে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় সন্দেহ হলে তাকে আটকিয়ে দেয়া হয়। এ প্রসঙ্গে ওই কিশোরীর মা জানান, তার মেয়ের সঙ্গে মিনহাজুল নামে এক ছেলের সম্পর্ক ছিল। ওই ছেলেই গর্ভের সন্তান নষ্ট করার জন্য আমার মেয়েকে ওষুধ খাওয়ার পরামর্শ দেয়।

এ বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত মিনহাজুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে সে তাদের সম্পর্কের বিষয়টি স্বীকার করেছে। সদর হাসপাতালের তত্বাবধায় ডা. নাদিরুল আজিজ চপল বলেন, বিষয়টি শুনেছি। তবে ওই কিশোরী এখন সুস্থ আছে।

ঠাকুরগাঁও সদর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তানভিরুল ইসলাম বলেন, এ বিষয়টি আমার জানা নেই। খবর নিয়ে জানানো হবে।