​প্রবাসেও মুসলিমবিদ্বেষ ছাড়াচ্ছে ভারতীয়রা, ব্যাপক চটেছেন আমিরাতের রাজকুমারী

প্রকাশিত: এপ্রি ২৩, ২০২০ / ০৯:১৫অপরাহ্ণ
​প্রবাসেও মুসলিমবিদ্বেষ ছাড়াচ্ছে ভারতীয়রা, ব্যাপক চটেছেন আমিরাতের রাজকুমারী

হিন্দ্যুত্ববাদী দল বিজেপি রাষ্ট্র ক্ষমতায় আসার পর থেকেই হয়রানি-নির্যাতনের শিকার ভারতের মুসলিমরা। পর্দা, গোরক্ষা, এনআরসিসহ নানা ভাবে দেশটির মুসলিম বিদ্বেষীদের রোষানলে মুসলিমরা।

ভিডিওটি দেখুন এখানে

সম্প্রতি এই বিদ্বেষী মনোভাব আরও বেড়েছে করোনা ভাইরাসকে কেন্দ্র করে। করোনার বিরুদ্ধে লড়াইতে ভারতে মুসলিমদের অন্যায়ভাবে আক্রমণের শিকার হতে হচ্ছে বলে অর্গানাইজেশন ফর ইসলামিক কোঅপারেশন বা ওআইসি প্রকাশ্য অভিযোগ এনেছে।

এমন কী, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও সৌদি আরবের প্রভাবশালী ব্যক্তিত্বরাও কোনও কোনও ভারতীয়র মুসলিম-বিদ্বেষী মন্তব্যের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে সরব হয়েছেন। এই সারিতে যোগ হয়েছেন আরব আমিরাতের রাজকুমারী হেন্দ আল কাসিমি।

সম্প্রতি প্রবাসে থেকেও এক ভারতীয় মুসলিম বিদ্বেষী টুইট করেছেন। এতেই ক্ষিপ্ত রাজকুমারী। ভারতীয় ওই হিন্দুর বেশ কিছু আপত্তিকর ও মুসলিম-বিরোধী টুইটের স্ক্রিনশট দিয়ে তাকে হুঁশিয়ারি দেন, ‘যে দেশে রুটিরুজি কামাচ্ছেন তাদের বিরুদ্ধে ঘৃণা ছড়ালে সেটা কিন্তু উপেক্ষা করা হবে না!’

পরে এ সপ্তাহে এক ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘ওই ব্যক্তি যেভাবে ইসলামকে নিয়ে বিদ্রূপ করেছে এবং ১৪০০ বছরের প্রাচীন এক ধর্মকে গাধাদের ধর্ম বলে গালি দিয়েছে তা মেনে নেওয়া যায় না। হ্যাঁ, আমিরাতকে গড়ে তোলার পেছনে ভারতীয়দের অবদানকে আমরা সম্মান করি, তাদেরকে পরিবারের অংশ বলে মনে করি – ফলে আমি লজ্জিত যে একজন ভারতীয় এমন কথা বলতেও পারেন।’

হেন্দ আল কাসিমির পর সৌদি আরবের প্রভাবশালী ইসলামী ব্যক্তিত্ব শেখ আবিদি জাহারানিও টুইট করেন, মধ্যপ্রাচ্য ও গাল্ফে কর্মরত যে উগ্রবাদী ভারতীয়রা ইসলামের বিরুদ্ধে বিদ্বেষ ছড়াচ্ছেন তাদের অবিলম্বে দেশে ফেরত পাঠানো দরকার।