প্রবাসী নুরুজ্জামানের আর হলো না বিয়ে করা

প্রকাশিত: এপ্রি ২৯, ২০১৯ / ০২:৩১অপরাহ্ণ
প্রবাসী নুরুজ্জামানের আর হলো না বিয়ে করা


বিদেশ থেকে ফেরে বিয়ে করতে চেয়েছিলেন পাবনার বেড়া উপজেলায় আমিনপুরের নুরুজ্জামান (২৮) নামের এক যুবক। কিন্তু সে আশা পূরণ হলো না তার। নুরুজ্জামানকে গলাকেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। রোববার ভোরে নিজ বাড়ির পার্শ্ববর্তী মাঠ থেকে তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় সাইফুল ও আলমগীর নামে দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নিহত নুরুজ্জামান বেড়ার আমিনপুর থানার সিংহাসন গ্রামের কাবিল প্রামাণিকের ছেলে।

ভিডিওটি দেখুন এখানে

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্র জানায়, নুরুজ্জামান সিঙ্গাপুরে এক বেসরকারি কোম্পানিতে চাকরি করতো। এক বছর আগে সিঙ্গাপুর থেকে দেশে ফিরে ওই কোম্পানির চট্রগ্রাম পোর্ট শাখায় চাকরি নেন তিনি। ১০-১২ দিন আগে বিয়ে করার উদ্দেশ্যে ছুটি নিয়ে বাড়ি আসে। বাড়ি এসে দুএকটা মেয়েও দেখে। শনিবার সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফিরে আসেনি। রাতে বাড়ি না ফেরায় পরিবারের লোকজন নুরুজ্জামানকে খোঁজাখুঁজি শুরু করে। এক পর্যায়ে রোববার ভোরে বাড়ির পার্শ্ববর্তী মাঠে (খাপালে) গলা কাটা অবস্থায় তার লাশ পাওয়া যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

আমিনপুর থানার ওসি মনিরুল ইসলাম জানান, লাশের গলাকাটা ও শরীরে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সন্দেহভাজন সাইফুল ও আলমগীরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি জানান, আটককৃতরা ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার প্রাথমিক স্বীকারোক্তি দিয়েছে। তাদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক রক্তমাখা মোবাইলসেট ও হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত রক্তমাখা হাসুয়া উদ্ধার করা হয়েছে। তবে কী কারণে তাকে হত্যা করেছে এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানা যায়নি। এ ব্যাপারে নুরুজ্জামানের ভাই আলতাফ হোসেন বাদী হয়ে আমিনপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। যুগান্তর।