সরকারের এজেন্ট?

প্রকাশিত: মার্চ ৩, ২০১৮ / ১২:৫৬অপরাহ্ণ
সরকারের এজেন্ট?

ভিডিওটি দেখুন এখানে

কর্নেল (অব.) অলি আহমেদ, অধ্যাপক বদরুদ্দোজা চৌধুরীকে সরকারের এজেন্ট মনে করেন, বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভী সহ তারেকপন্থী নেতারা। শুক্রবার বিএনপির নয়া পল্টনের দলীয় কার্যালয়ে তারেকপন্থী বিএনপি নেতাদের এক গোপন বৈঠকে এরকম মতামত ব্যক্ত করা হয়। সূত্রমতে, বৈঠকে বিএনপিকে বেগম খালেদা জিয়া ছাড়াই একটি নির্বাচনের দিকে নিয়ে যেতে বাধ্য করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করা হয়। এ কারণে, বেগম জিয়া গ্রেপ্তার হবার পর যারা বিএনপির সঙ্গে ঘনিষ্ট হবার চেষ্টা করছে, তাদের কেউ কেউ সরকারের এজেন্ট হিসেবে কাজ করছে। মুখে বিএনপি চেয়ারপারসনের মুক্তি চাইলেও ভেতরে ভেতরে এরা নির্বাচনের জন্য বিএনপিকে প্ররোচিত করছে। বৈঠকে, নতুন বন্ধুদের ব্যাপারে সতর্ক থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, কর্নেল (অব.) অলি আহমদের সঙ্গে সরকারের ঘনিষ্ট যোগাযোগ রয়েছে। তিনি নির্বাচনে যাবেন, এমন অঙ্গীকারও করেছেন। এখন তিনি বিএনপি দরদী সেজেছেন। তাঁর মূল উদ্দেশ্য হলো, বিএনপির সিনিয়র নেতাদের নিয়ে নির্বাচনের মাঠে নামা। একই রকম ভাবে, অধ্যাপক বদরুদ্দোজা চৌধুরীর ব্যাপারেও সন্দেহ পোষণ করা হয়েছে।

একটি সূত্র জানিয়েছে, লন্ডন থেকে তারেক জিয়া জানিয়েছেন, যে বিএনপি ভাঙ্গার নতুন ষড়যন্ত্রে কর্নেল (অব.) অলি এবং বদরুদ্দোজা চৌধুরীর হাত আছে। বেগম খালেদা জিয়া এবং তারেককে বাদ দিয়ে বিএনপিকে নির্বাচনে নিয়ে যেতে তারা সরকারের এজেন্টের ভূমিকা পালন করছেন। এজন্য তারা হঠাৎ বন্ধু সেজেছেন। বৈঠকে এদের সম্পর্কে এবং দলের কয়েকজন সিনিয়র নেতা সম্পর্কে সতর্ক থাকার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বৈঠকে বলা হয়েছে, বেগম জিয়াকে বাইরে রেখে বিএনপিকে কোনো নির্বাচনে যেতে দেওয়া হবে না।

বাংলা ইনসাইডার/