সংবাদ শিরোনাম :

আফ্রিকার প্রধানমন্ত্রীর দফতরে ঢুকে পড়েছে জঙ্গিরা, চলছে গুলির লড়াই

রিপোর্টার
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ২ মার্চ, ২০১৮
  • ২২ যত সময় দেখা হয়েছে

জঙ্গি হামলায় রক্তাক্ত পশ্চিম আফ্রিকার দেশ বুরকিনা ফাসো। দেশটির রাজধানী শহরে হামলা চালানো হয়েছে। জানা গিয়েছে, খোদ প্রধানমন্ত্রীর দফতর, সেনা প্রধানের কার্যালয় এবং ফরাসি দূতাবাসে একের পর এক হামলা হয়। নিরাপত্তারক্ষীদের গুলিতে চার হামলাকারীর মৃত্যুর সংবাদ এসেছে। তবে কোন সংগঠন নাশকতাতে জড়িত তা এখনও জানা যায়নি।

একাধিক হামলায় সন্ত্রস্ত বুরকিনা ফাসোর জনগণ৷ রাস্তায় দেখা যাচ্ছে আতঙ্কিত জনসাধারণের পালানোর মুহূর্ত৷ বিশাল কালো ধোঁয়ায় ছেয়ে গিয়েছে চারিদিক৷ আকাশ পথে টহল দিচ্ছে সেনা কপ্টার৷ পরপর বিস্ফোরণের পরই শোনা গিয়েছে গুলির শব্দ৷ এর থেকেই ধারণা পশ্চিম আফ্রিকার দেশ বুরকিনা ফাসোতে জঙ্গি হামলা হয়েছে৷ তবে কোন সংগঠন এই হামলায় জড়িত সে বিষয়ে তথ্য নেই৷

বিবিসি, আলজাজিরা, রয়টার্সের খবর- বুরকিনা ফাসোর সেনা সদর কার্যালয়ের ভিতর প্রবল বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে৷ মুখোশ পরা একদল বন্দুকধারী হামলা চালিয়েছে বুরকিনা ফাসোর সেনা কার্যালয়ে৷ তবে তারা কোন গোষ্ঠীর তা পরিষ্কার নয়৷ সেনা কার্যালয়টি রাজধানী শহর ওউগাদুগু শহরের কাছেই৷ সম্প্রতি বুরকিনার প্রতিবেশী রাষ্ট্র মালিতে বিস্ফোরণ ঘটানো হয়৷ সেই বিস্ফোরণে রাষ্ট্রসংঘ শান্তিরক্ষী বাহিনীতে কর্মরত বাংলাদেশি সেনাকর্মীদের মৃত্যু হয়৷

এএফপি জানাচ্ছে, একদল বন্দুকধারী একটি গাড়ি করে গিয়ে সেনা কার্যালয়ের সামনে বিস্ফোরণ ঘটায়৷ তারপরেই তারা ঢুকে পড়ে সেনা ঘাঁটির ভিতরে৷ বুরকিনার মার্কিন দূতাবাসও হামলার খবর নিশ্চিত করেছে৷ তবে কারা জড়িত এই হামলায় তা জানায়নি৷ বিভিন্ন দেশের নাগরিকদের সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছে সংশ্লিষ্ট দেশগুলির দূতাবাস৷

বুরকিনা ফাসোতে আগেও জঙ্গি হামলা হয়েছে৷ গত বছর রাজধানী ওউগাদুগুতে এই হামলায় কমপক্ষে ১৭ জন নিহত হন। এর আগে ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে হামলা চালানো হয়। সেই হামলায় মৃত্যু হয় ৩০ জনের। হামলার দায় স্বীকার করেছিল আল কায়েদা।

পোস্টটি আপনার বন্ধুকে শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
About Us | Privacy Policy | Term and Condition | Disclaimer |© All rights reserved © 2021 probashirnews.com