মালয়েশিয়ায় শ্রমিক ভিসায় যারা আছেন তাদের জন্য দুঃসংবাদ !

প্রকাশিত: মার্চ ২, ২০১৮ / ১২:৩৫পূর্বাহ্ণ
মালয়েশিয়ায় শ্রমিক ভিসায় যারা আছেন তাদের জন্য দুঃসংবাদ !

মালয়েশিয়া অভিবাসীরা কৌশলগত ভাবে অনেক ছোট ও মাঝারি ব্যবসায় পরিচালনা করছে এবং মালয়েশিয়ানরা তাদের নাকের নীচে এই অধিকার অর্জনের অনুমতি দিচ্ছে৷অভিবাসন বিভাগ এটি নিয়ন্ত্রণে কঠোর ভাবে কাজ করছে৷অভিবাসী কর্তৃপক্ষ বলেন, তারা তাদের বৈধ কর্মস্থল ত্যাগ করে কাজের পারমিটেরে অপব্যবহার করছে৷

ভিডিওটি দেখুন এখানে

মালয়েশিয়ায় শ্রমিক ভিসায় থেকে ব্যবসায় পরিচালনা করার সাথে অভিবাসীদের সম্পৃক্ততা নিয়ে সম্প্রতি একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম নিউ স্ট্রাইটিস টাইমস৷সে প্রতিবেদনে বলা হয়, সমস্যাটি স্বীকার করে অভিবাসন বিভাগের মহাপরিচালক দাতুক সেরী মোস্তফার আলী নিউ স্ট্রাইটিস টাইমসকে বলেছেন,

দুই মাসে ৭,২২৫ জন অভিবাসিকে আটক করেছে অভিবাসন বিভাগ৷এদের মধ্যে অনেকেই অবৈধ ব্যবসার সাথে জড়িত৷

এছাড়া অবৈধ বিদেশী কর্মীদের আশ্রয় দানের জন্য ১৬১ জন স্থানীয় নিয়োগকারীদেরও গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানান তিনি৷

মোস্তফার নিয়োগকারীদের দোষারোপ করে বলেন যে, তারা বিদেশী কর্মীদের ভিসার অপব্যবহার করে অন্য ক্ষেত্রে কাজ করার অনুমতি দেয়৷তিনি বলেন, অভিবাসীরা তাদের কর্মস্থলের মজুরি ছেড়ে বেশি অর্থ অর্জনের জন্য ব্যবসার প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠায় আগ্রহী৷তিনি উদাহরণ টেনে বলেন, তারা কৃষি কাজ করতে এসে এখানে ব্যবসা করছে৷

মুস্তাফার বলেন “স্থানীয় কর্তৃপক্ষের ব্যবসা লাইসেন্সের অপব্যবহার বন্ধ করতে হবে। আমরা কুয়ালালামপুর সিটি হলের প্রচেষ্টার প্রশংসা করি, তাদের এটাও নিশ্চিত করতে হবে যে তাদের কর্মীদের অর্ধেক হবে স্থানীয় ৷,,

মোস্তফার এনএসটি স্পেশাল প্রোবস টিম ও মেয়র তান শ্রী এমডি আমিনকে সাথে নিয়ে লিমবা পুডু এলাকাতে অভিযান পরিচালনা করেন৷তিনি বলেন, এই এলাকাটি ব্যবসার জন্য হতাশাজনক, বিদেশিদের দ্বারা এখানে অবৈধ ব্যবসা পরিচালিত হচ্ছে৷

“তাদের ব্যবসা মালয়েশিয়া চালানোর মতো নয়।তারা সব ধরণের জিনিস বিক্রি করে এবং সমস্ত ধরণের সেবা প্রদান করে।আমরা একটি দোকানে পতিতাবৃত্তির জন্য বানানো কৌটাঘর পেয়েছি ৷,,

নগর পিতা আমিন বলেছেন,”ব্যবসায়ের মালিকদের জুন পর্যন্ত সময় দেয়া হয়েছে যাতে ৫০ শতাংশ স্থানীয় শ্রমিক নিশ্চিত করে অন্যথায় তাদের লাইসেন্স প্রত্যাহার করা হবে৷,,

অভিবাসীদের অবৈধ ভাবে ব্যবসায়ে নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা উল্লেখ করে তিনি আরও জানান, আমরা একটি নতুন নীতি চালু করেছি ৷ আমরা এই বছরে সমস্ত ব্যবসা প্রঙ্গণে নোটিশ পাঠিয়েছি এবং অবশ্যই তা মেনে চলতে হবে ৷ যদি তারা ব্যর্থ হয়,আমরা তাদেরকে শোকজ বার্তা পাঠাবো ৷