কুয়েতে সাধারণ ক্ষমার মেয়াদ আরো ২ মাস বাড়লো!

প্রকাশিত: ফেব্রু ২১, ২০১৮ / ১১:৫০পূর্বাহ্ণ
কুয়েতে সাধারণ ক্ষমার মেয়াদ আরো ২ মাস বাড়লো!

ভিডিওটি দেখুন এখানে

ক্লকওয়াইজ: বাংলাদেশ দূতাবাস এবং সেখানে সাধারণ ক্ষমার আওতায় আউটপাস নিতে ভিড় করা প্রবাসীরা

কুয়েতে অবৈধভাবে বসবাসকারী বিদেশিদের জন্য সাধারণ ক্ষমার মেয়াদ বাড়লো আরো ২ মাস। গত ২৩ জানুয়ারি দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় এক প্রজ্ঞাপনে জানায়, ২৯ জানুয়ারি থেকে ২২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ২৫ দিনের জন্য সাধারণ ক্ষমার  সুযোগ থাকবে। আজ নয়া এক প্রজ্ঞাপনে তা আরো দুই মাস বাড়ানো হলো। এর ফলে সাধারণ ক্ষমার মেয়াদ এখন ২২ এপ্রিল পর্যন্ত বর্ধিত হলো।

এটা অন্যান্য অবৈধদের মতো সেখানে বসবাসরত বাংলাদেশিদের জন্যও একটা বিশাল সুখবর।

এর ফলে দেশটিতে বসবাসরত বাংলাদেশিসহ অন্য সব দেশের অবৈধ শ্রমিক/কর্মীরা নির্দিষ্ট  জরিমানার বিনিময়ে কুয়েতে বৈধভাবে বসবাস করার যে সুযোগ পেয়েছিলেন তা আরও দুই মাস বাড়লো। একইসঙ্গে তারা চাইলে জরিমানা না দিয়ে দেশে ফিরতে পারবেন।

আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি এই সাধারণ ক্ষমার মেয়াদ শেষ হওয়ার দুই দিন আগেই আজ ২০ ফেব্রুয়ারি (মঙ্গলবার) দেশটির সরকার ওই মেয়াদ আরো দুই মাস বাড়ানোর ঘোষণা দিল।

মঙ্গলবার রাতে কুয়েত থেকে প্রকাশিত আরবটাইম্স জানায়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে থাকা উপপ্রধানমন্ত্রী শেখ খালিদ আল জাররাহ আল সাবাহ স্বাক্ষরিত একটি ফরমান জারি করা হয়েছে যার সূত্রে সাধারণ ক্ষমার মেয়াদ ২ মাস বাড়ানো হয়েছে।

এ ঘটনা দেশটিতে অবৈধভাবে বসবাসরত হাজার হাজার বাংলাদেশিসহ একই ধরনের অবস্থায় থাকা অন্য দেশের প্রবাসীদের মাঝেও স্বস্তি এনে দিয়েছে।

বাংলাদেশি অধ্যুষিত কুয়েতের হাসাবিয়া (হাসই) এলাকা। এখানে অনেক দোকানের সাইনবোর্ডই বাংলায় লেখা  ছবি : কালের কণ্ঠ

সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সূত্র মোতাবেক, ২৫ দিনের সাধারণ ক্ষমার সুযোগ নিয়ে  আনুমানিক দেড় লাখ অবৈধ অভিবাসীর মধ্যে ৩০ হাজার জন ইতোমধ্যে কুয়েত ত্যাগ করেছে। এছাড়া ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা ছিল এমন ৫০ জন বিদেশিকে কুয়েত ত্যাগ করতে বাধা দেওয়া হয়েছে।

কারণ, তারা তাদের ওপর থেকে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে জেনারেল ডিপার্টমেন্ট ফর ইমিগ্রেশন ইনভেস্টিগেশনের সঙ্গে যোগাযোগ করেনি।

অপর এক সূত্র জানায়, কুয়েতস্থ ফিলিপাইন অ্যাম্বেসি প্রতিদিন তাদের ১৫০ থেকে ২০০ জন নাগরিককে দেশে ফিরিয়ে নেওয়ার কাজ করছে।

অপরদিকে, সাধারণ ক্ষমার জন্য ফের দুই মাস সময় বাড়ানোয় কুয়েতে অবৈধভাবে বসবাসরত সব দেশের নাগরিকরা সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে তারা এজন্য কুয়েত সরকারকে ধন্যবাদ, কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছে। কুয়েতের হাসাবিয়ায় বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশি শ্রমিক কাজল মৃধা কালের কণ্ঠকে জানান, এটা আমাদের মধ্যে যারা এখনও অবৈধ আছে তাদের জন্য বিশেষ এবং অতিরিক্ত এক সুযোগ হিসেবে দেখা দিয়েছে।

কুয়েতি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ খালিদ আল জাররাহ আল সাবাহ​ স্বাক্ষরিত ফরমান

সাধারণ ক্ষমার আওতায় কুয়েত সরকারকে নির্দিষ্ট অর্থ জরিমানা দিয়ে বৈধ হওয়া যাবে।

প্রসঙ্গত, এমন সুযোগ ২০১৬ সালে সর্বশেষ দিয়েছিল কুয়েত সরকার। এরপর এ বছরের শুরুতেই (২৩ জানুয়ারি) দেওয়া হয় এমন সুযোগ। অনেক সময় বেশ কয়েক বছর অপেক্ষা করতে হয় এ ধরনের সাধারণ ক্ষমার জন্য। তবে এবার সময় শেষ হওয়ার আগেই আরো ২ মাস বাড়ানোয় সকল দেশের প্রবাসীরাই খুশি।

একটি সূত্র জানায়, এবার জরিমানার পরিমাণ ৬০০ কেডি (কুয়েতি দিনার) যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ১ লাখ ৬৬ হাজার টাকা প্রায়। আগেরবারের সাধারণ ক্ষমায়ও জরিমানার পরিমাণ তাই ছিল। সাধারণ ক্ষমার প্রচলিত নিয়ম মোতাবেক, রেসিডেন্সি লঙ্ঘনকারী যারা এই সুযোগ নিয়ে কুয়েত ত্যাগ করবে তারা নতুন ভিসা নিয়ে ফের কুয়েতে যেতে পারবেন।

সাধারণ ক্ষমা বিষয়ে মঙ্গলবার প্রকাশিত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ খালেদ আল জাররাহ আল সাবাহর স্বাক্ষর রয়েছে। কুয়েতলোকাল.কম, আরবটাইম্স.কম